চাঁদের অন্ধকার প্রান্তে রহস্যময় খনিজ পদার্থ পেলো চীনের রোভার

468

বছরের প্রথম দিকে চীনের Chang’e-4 lunar lander চাঁদের প্রান্তে পৌঁছে বিশ্ব রেকর্ড করেছিলো। এবার lander-এর রোভার Yutu-2 সম্ভবত খোঁজ পেয়েছে চাঁদের খনিজ পদার্থের। Nature পত্রিকায় এমনটিই জানানো হয়েছে। যদি খনিজ পদার্থগুলো চাঁদের mantle-এর অংশ বলে প্রমাণিত হয়, বিজ্ঞানীরা চাঁদ ও পৃথিবীর আরো অনেক রহস্য উদঘাটনে সমর্থ হবেন।

বছরের প্রথম দিকে চীনের Chang’e-4 lunar lander চাঁদের প্রান্তে পৌঁছে বিশ্ব রেকর্ড করেছিলো। এবার lander-এর রোভার Yutu-2 সম্ভবত খোঁজ পেয়েছে চাঁদের খনিজ পদার্থের। Nature পত্রিকায় এমনটিই জানানো হয়েছে। যদি খনিজ পদার্থগুলো চাঁদের mantle-এর অংশ বলে প্রমাণিত হয়, বিজ্ঞানীরা চাঁদ ও পৃথিবীর আরো অনেক রহস্য উদঘাটনে সমর্থ হবেন। Chang’e-4 পরিকল্পনামাফিক চাঁদের Von Kármán crater-এ অবতরণ করেছিলো। Von Kármán crater পুরো সৌরজগতের মধ্যে অন্যতম বৃহৎ impact structure। National Geographic বলছে, এই crater চাঁদের mantle-এর পদার্থ অনুসন্ধানের জন্য ভালো একটি অঞ্চল। Crater-এর মুখে Yutu-2 দুটি খনিজ পদার্থ পেয়েছে। একটি হলো low-calcium (ortho) pyroxene, আরেকটি olivine। চাঁদের mantle-এর উপরাংশের নির্মাণ পদার্থ নিয়ে ধারণাগুলোর সাথে তথ্যগুলো মিলে যাচ্ছে কিছুটা। বিজ্ঞানীদের ধারণা চাঁদের পৃষ্ঠ এবং mantle-এর স্তর পরস্পর আলাদা। প্রাচীন গলিত পদার্থসমূহ সময়ের সাথে সাথে শীতল হয়ে এমনটি হয়েছে। তবে চাঁদ নিয়ে যা কিছুই জানা গিয়েছে, বেশিরভাগই Apollo mission-এর মাধ্যমে আনা নমুনা থেকে। নমুনাগুলো আনা হয়েছে চাঁদের যে অংশটি পৃথিবীর কাছাকাছি, সেখান থেকে। এখনো কেউ চাঁদের mantle-এর নমুনা সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়নি। তবে বিজ্ঞানীদের কেউ কেউ বলছেন এ গবেষণা এখনো শেষ হয়নি। হতে পারে Yutu-2-এর spectrometer আগ্নেয়গিরি থেকে উৎপন্ন কাঁচ অথবা Von Kármán crater-এর কোনো জমে শক্ত হওয়া পদার্থ দেখছে। Yutu-2 চাঁদের ভূগোল বোঝার জন্য তার অনুসন্ধান চালিয়ে যাবে এবং পৃথিবী বরাবর নমুনা পাঠাতে থাকবে। যেভাবেই আলোচ্য নমুনাগুলোর ব্যাখ্যা প্রদান করা হোক না কেন, এটি যে গবেষণার জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি পদযাত্রা, বিজ্ঞানীদের তাতে দ্বিমত নেই।

Chang’e-4 পরিকল্পনামাফিক চাঁদের Von Kármán crater-এ অবতরণ করেছিলো। Von Kármán crater পুরো সৌরজগতের মধ্যে অন্যতম বৃহৎ impact structure। National Geographic বলছে, এই crater চাঁদের mantle-এর পদার্থ অনুসন্ধানের জন্য ভালো একটি অঞ্চল। Crater-এর মুখে Yutu-2 দুটি খনিজ পদার্থ পেয়েছে। একটি হলো low-calcium (ortho) pyroxene,আরেকটি olivine। চাঁদের mantle-এর উপরাংশের নির্মাণ পদার্থ নিয়ে ধারণাগুলোর সাথে তথ্যগুলো মিলে যাচ্ছে কিছুটা।

বিজ্ঞানীদের ধারণা চাঁদের পৃষ্ঠ এবং mantle-এর স্তর পরস্পর আলাদা। প্রাচীন গলিত পদার্থসমূহ সময়ের সাথে সাথে শীতল হয়ে এমনটি হয়েছে। তবে চাঁদ নিয়ে যা কিছুই জানা গিয়েছে, বেশিরভাগই Apollo mission-এর মাধ্যমে আনা নমুনা থেকে। নমুনাগুলো আনা হয়েছে চাঁদের যে অংশটি পৃথিবীর কাছাকাছি, সেখান থেকে।


এখনো কেউ চাঁদের mantle-এর নমুনা সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়নি। তবে বিজ্ঞানীদের কেউ কেউ বলছেন এ গবেষণা এখনো শেষ হয়নি। হতে পারে Yutu-2-এর spectrometerআগ্নেয়গিরি থেকে উৎপন্ন কাঁচ অথবা Von Kármán crater-এর কোনো জমে শক্ত হওয়া পদার্থ দেখছে। Yutu-2চাঁদের ভূগোল বোঝার জন্য তার অনুসন্ধান চালিয়ে যাবে এবং পৃথিবী বরাবর নমুনা পাঠাতে থাকবে। যেভাবেই আলোচ্য নমুনাগুলোর ব্যাখ্যা প্রদান করা হোক না কেন, এটি যে গবেষণার জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি পদযাত্রা, বিজ্ঞানীদের তাতে দ্বিমত নেই।

পোস্টটি ভালো লাগলে Like দিন, পোষ্টটি সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকলে অবশই কমেন্ট করবেন এবং প্রতিদিন প্রযুক্তির সব letest নিউজের Update পেতে (প্রযুক্তির আলো.কম) এর সাথে থাকুন ।    

আরও পড়ুনঃ ASUS বাজারে নিয়ে এলো 48MP Flip ক্যামেরার Zenfone 6