বাজারে আসছে Windows 10S- এর নতুন Mode

Windows 10S Mode একটি স্বতন্ত্র operating system হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিলো ২০১৭-এর মে মাসে। মিশ্র প্রতিক্রিয়া ছিলো OS-টি নিয়ে। তবে তখন থেকেই বিভিন্ন উন্নয়ন আনা শুরু হয়েছে এতে। OS-টি নিয়ে বেশিরভাগ অভিযোগ ছিলো, এতে Windows Store-এর পাওয়া app বাদে কিছুই install করা যেতো না।Windows 10 S Mode-এ ইচ্ছেমতো app install করা যাবে না, কেবল Microsoft Store-এ যা পাওয়া যায় তা ছাড়া। সম্প্রতি Windows 10 S Mode থেকে অন্যান্য OS-এ রূপান্তরের সুযোগও রয়েছে। Windows 10 S Mode সঠিক ব্যবহারকারী ও ডিভাইসের জন্য উপযোগী। Microsoft Surface Go একটি উদাহরণ।




Windows 10 S Mode সর্বশেষ Windows 10 update, যেমন October 2018 Update ও আসন্ন Windows 10 April 2019 Update-এর সুবিধাভোগ করতে পারবে। নতুন কিছু ফিচার আসছে, যেমন Light Mode, যার মাধ্যমে Windows 10-এর অন্ধকার ভাবটা কাটানো যাবে। এই Update-এর মাধ্যমে storage space নিয়েও কিছু কাজ করা যাবে, যাতে Windows 10 S Update-এর জন্য খালি জায়গা থাকে হার্ডডিস্কে।Windows 10 S পরবর্তী Windows 10-এর বড় version-এর সুবিধাও নিতে পারবে। এই বড় version-টি ইতোমধ্যেই tester-দের কাছে পাঠানো হয়েছে। কি কি বিষয় এতে আনা হচ্ছে, তা নিশ্চিত নয়। তবে ধারণা করা হচ্ছে এতে Sets feature থাকবে।Windows 10 S Mode বর্তমানে Windows ecosystem-এর মূল একটি অংশ। তাই এ ব্যাপারে যত খবর ও তথ্য আসছে, তা দেওয়ার চেষ্টা করছি আমরা।

Windows 10S প্রথম ছাড়া হয়েছিলো ২০১৭-এর ২রা মে। পরবর্তী মাসগুলোতে এই OS ব্যবহার করা ডিভাইসটিগুলো বের হয়েছে। এবার অবশ্য Windows 10S আরো উন্নত। মঙ্গলবারের সংবাদ সম্মেলনে Microsoft তার নতুন Surface ডিভাইসগুলো নিয়ে বসবে, হয়তো তার সাথে নতুন OS এবং ডিভাইসগুলোর উন্নতি নিয়েও বেশ জানা যাবে।Microsoft-এর পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্যবহারকারীরা S Mode থেকে সাধারণ UI switch-এ আসতে পারবে। তবে ব্যবস্থাটি এখনো প্রস্তুত নয়। এখন পর্যন্ত S Mode থেকে বের হওয়ার সহজ পন্থা: সোজা Windows Store-এ গিয়ে ‘switch out of S Mode’ খুঁজে তা ব্যবহার করা। কবে switch-এর ব্যবস্থা প্রস্তুত হয়ে বাজারে আসবে, তা অবশ্য নিশ্চিত নয়। Windows 10 S উন্মোচনের অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণের শিরোনাম ছিলো ‘#MicrosoftEDU’। সন্দেহ নেই এটি শিক্ষাখাতে ব্যবহৃত হবে। এমনকি দেখা যাচ্ছে, Windows 10S ব্যক্তি ক্রেতাদের কাছে বিক্রি না করে শিক্ষা খাতে IT administrator-দের দেয়া হচ্ছে। দোকানে ও অনলাইনে পাওয়া যায় এমন ল্যাপটপেও দেয়া হচ্ছে।যখন Google-এর Chromebook শিক্ষাখাতে এসে বিরাট সাফল্যের মুখ দেখছে, Microsoft কেনই বা পিছিয়ে থাকবে?



দাম খুব বেশি পড়ার কথা না। Hardware maker-রাই এই lightweight OS-এর খরচটা উঠিয়ে নিচ্ছে, যেহেতু Windows 10S Mode কিনতে হবে না, কিনতে হবে এটি চালাবার মতো hardware। Hardware কোম্পানিগুলোর সাথে software-টি লাইসেন্স করার যে খরচ Microsoft নিবে তাও যোগ হবে দামের সাথে। Surface Laptop বাদে অন্যান্য ডিভাইস যেগুলো Windows 10S Mode চালাবে, সেগুলোর দাম পড়বে ১৮৯ মার্কিন ডলার  এবং সর্বোচ্চ গেলে ২৯৯ মার্কিন ডলার । নামীদামী কম্পিউটার কোম্পানি, যেমন Dell, HP, Asus, Acer এবং Lenovo তাদের ডিভাইসে Windows 10S Mode যোগ করছে।অবশ্য Windows 10S Mode কেবল একটি toggle, যার অতিরিক্ত নিজস্ব দাম হাঁকা হয় না। Windows 10 Home এবং Pro S Mode ব্যবহারীরা এম্নিতেই Windows Store-এ গিয়ে 10 S থেকে বের হয়ে আসার ব্যবস্থা করতে পারেন। যদিও এখন কেবল S Mode থেকে বেরই হওয়া যায়, ভবিষ্যত প্রযুক্তিতে হয়তো S Mode-এ আবার ফিরে আসার ব্যবস্থাও থাকবে।

Lower-end ডিভাইসগুলোর জন্য Windows 10-এর আরো বেশি নিরাপদ ও lightweight version হিসেবে Windows 10 S কাজ করবে। অবশ্য এই OS-এ Windows Store থেকে ডাউনলোড করা app ছাড়া অন্য কিছু কাজ করবে না। বিষয়টি কেমন পরিচিত মনে হচ্ছে না? Windows 8 RT এবং Bing-সহ Windows 8 তো curation-এর মাধ্যমে Microsoft-কেই সকল app-এর একমাত্র সরবরাহকারী বানাতে যাচ্ছিলো! OS-টিতে অবশ্য লাভ আছে। কম্পিউটার চালানোর ৫ সেকেন্ডের মধ্যে startup হয়ে যাবে, যেখানে Windows 10 Pro সময় নিতো ৩০-৪০ সেকেন্ড। শুধু তাই নয়, settings (যেমন Wi-Fi, webcam ইত্যাদি) configure করা এক রুমভর্তি শিক্ষার্থীর জন্যেও ল্যাপটপে USB drive প্রবেশের মতো সহজ হবে।

Google-এর Chrome OS-এর সাথে পাল্লা দিতে গিয়ে Microsoft তার Windows 10 S-কে অধিক নিরাপদ করেছে। তবে হ্যাঁ, ভাইরাসের আক্রমণ থেকে বেঁচে আসা একটু কঠিন, যেহেতু এতে Microsoft approved app ছাড়া আর কিছুই install করা যায় না। অতীত বলে Windows-এর ভাইরাসগুলোর উৎপত্তি মূলতঃ অনিরাপদ ইন্টারনেট ডাউনলোড থেকে।যদি বাইরের কোনো app install-এর দরকার পড়েই, তবে Windows Store-এ ‘switch out of S Mode’-এর ব্যবস্থা তো আছেই। এতে S Mode থেকে 10 Home বাPro-তে চলে এসে নিজের কাজ সারা যাবে। পূর্বে এ থেকে Microsoft কিছু পয়সা আদায় করতো, কিন্তু এখন তা হচ্ছে বিনামূল্যে।ভবিষ্যতে Microsoft ব্যবহারকারীদের Windows 10 Pro থেকে Windows 10 S-এ ফেরত আসার ব্যবস্থাও করবে। শোনা যাচ্ছে Windows 10 Lean Mode নিয়ে কাজ করছে Microsoft, যা আরো lightweight এবং locked down হবে




নতুন Surface Laptop 2 অবশ্য Windows 10 Home OS সহকারে পাওয়া যাচ্ছে। তার আগের ডিভাইসে ছিলো S Mode। Windows 10 Sচালিত ডিভাইসগুলোতে কি কি থাকতে পারে? সবারই জানা, Microsoft-এর নতুন ডিভাইসগুলোতে যা থাকে। যেমন Edge browser, OneNote, Windows Ink, Movies, Groove Music, Maps, Mail, Calendar ইত্যাদি।Windows 10 cloud operating system-এ ২০১৯-এর আগে x86/x64 program support দেখা যাচ্ছে না, যতদিন না Polaris প্রত্যেকটি legacy application-এর জন্য ‘virtualization container’ তৈরি করছে। এতে সবকিছু ঠিক থাকলে Windows cloud OS পূর্বের.exe file-গুলো emulate করতে পারবে।বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও Windows 10 S-তে File Explorerকাজ করবে। OS-টি pre-install করা অনেক ল্যাপটপে কম capacity-এর SSD থাকতে পারে। তবে Microsoft-এর OneDrive Files On-Demand-এর মাধ্যমে cloud-এ file জমা রাখা যাবে, ব্যবহার করা যাবে যেন তা কম্পিউটারের ডিস্কেই আছে।সকল বিবেচনা শেষ করেও Windows 10 S-এর কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে Microsoftধীরে ধীরে উন্নত মান নিশ্চিত করে সকল প্রশ্নের জবাব দিয়ে দিবে।

পোস্টটি ভালো লাগলে Like দিন, পোস্টটি সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকলে অবশই কমেন্ট করবেন এবং প্রতিদিন প্রযুক্তির সব letest নিউজের Update পেতে (প্রযুক্তির আলো.কম) এর সাথে থাকুন ।