Energizer বাজারে নিয়ে এলো 18,000mAh ব্যাটারি স্মার্টফোন

Energizer স্মার্টফোন জগতে অসাধারণ সম্ভাবনাময় একটি নাম। MWC 2019-তে কোম্পানিটির নতুন ২৬টি ফোনের প্রদর্শনী হয়েছে। তবে সর্বাধিক নজর কেড়েছে Power Max series-এর ফোনগুলো। বিশাল বিশাল ব্যাটারির এ ফোনগুলোর মাঝে সর্বশেষ সংযোজন Power MaxP18K Pop।

18000mAh ব্যাটারি ক্ষমতা এবং সেরকম পরিমাপের এ ডিভাইসটি যেন স্মার্টফোন নয়, সাক্ষাত দানব! তবে এ কি কেবল নতুন, সাজিয়ে গুছিয়ে রাখার মতো ডিভাইস, প্রাত্যহিক জীবনে ব্যবহারের মতো স্মার্টফোন?

Energizer Power Max: ছাড়ের তারিখ এবং দাম

ছাড়ের তারিখ এখনো জানায়নি Energizer। কেবল ‘গ্রীষ্মে আসছে’ বলেছে । কাজেই, জুন-অগাস্টের দিকেই হয়তো বাজারে আসবে ডিভাইসটি। পূর্বের Power Max 16K Proযেহেতু গণহারে ছাড়া হয়নি, এবারও তেমন কিছু হতে পারে।

ডিভাইসটি বাজারে এলে ইউরোপে দাম পড়বে ৫৯৯ ইউরো (৬৮৯ মার্কিন ডলার, ৫১৫ পাউন্ড বা ৯৫০ অস্ট্রেলিয়ান ডলার) যা ট্যাক্স ছাড়া বাংলাদেশী টাকায় ৫৫ হাজার টাকা । কেবল ব্যতিক্রমী ব্যাটারি ছাড়া আর অন্য কোনো বিশেষ বৈশিষ্ট্য নেই, এমন ফোনের জন্য দামটি বেশ চড়া বলে ধরা যেতেই পারে।

Display এবং Design

ডিভাইসটির পুরুত্ব বেশ।Energizer অবশ্য পরিমাপটি বলেনি। তবে দৈর্ঘ্যে প্রস্থে গতানুগতিক Plus-sized ফোনের মতোই লাগছে। সম্ভবত পুরুত্ব তা থেকে ৩ গুণ বেশি; 7-8mm থেকে বেড়ে প্রায় 20mm। চোখ বন্ধ করে ধরলে অনায়াসেই ডিভাইসটিকে ‘ইট’ বলে চালিয়ে যাবে বৈকি! প্যান্টের পকেটে হয়তো সহজে ঢুকবে না। হাতের পুরোপাঞ্জায় ধরাও দুষ্কর ফোনটি। যদিও কৌশল করে rear button-গুলো জায়গা মতো বসানো হয়েছে যাতে সহজেই স্পর্শ করা যায়, ফোনের পাশগুলো ধরে কোনো app বা ফিচার ব্যবহার করা একটু কঠিন হবে।


Power Max 18K Pop বেশ ভারীও বটে। বেশ কিছুক্ষণ ধরে থাকলে হাতে টান লাগতে পারে।েেঅবশ্যই এহেন ওজনের কারণ ডিভাইসের ‘অসাধারণ’ ব্যাটারি। তবে এদিক-সেদিক চলাফেরায় ব্যিবিহারের জন্যে তা আসলেই বেশ ভারী। আর সেসব সময়ে তো ব্যাটারি ক্ষমতা ভালো থাকা দরকার।

বিরাটকায় এ ডিভাইসের অন্যান্য ফিচার কিন্তু গতানুগতিক। যেমন, নিচের অংশে আছে USB-C port(কোনো হেডফোন জ্যাক নেই)। ফোনের ডানদিকে আছে volume এবংpower button, সেগুলোর নিচে আছে একটি fingerprint sensor। Sensor-এর এহেন অবস্থান বেশ উপকারী। হাতের মুঠোয় পুরো ডিভাইস ধরতে না পাওরলেও সহজেই এ sensor দিয়ে ফোন আনলক করা যাবে।

Energizer বাজারে নিয়ে এলো 18,000mAh ব্যাটারি স্মার্টফোন 5

ব্যাটারি

Power Max P18K Pop কেনার প্রধান কারণ হতে পারে ব্যাটারি। 18000mAh ব্যাটারি ক্ষমতা আজ পর্যন্ত কোনো স্মার্টওনে আসেনি। চার্জও নিঃসন্দেহে থাকবে দিনের পর দিন।অবশ্যই ব্যাটারির আকৃতি বড় হলেই আয়ুকাল বাড়ে না। কিন্তু যখন বেশিরভাগ ফোনের ব্যাতারি ক্ষমতা 3000mAh-এ থেমে যায়, তখন 18000mAh মানে আসলেই ব্যতিক্রমী কিছু থাকার কথা। সরাসরি পরীক্ষণে ব্যাতারি চার্জ সামান্য কমেছে বলেও দেখা যায়নি, যদিও settings এবং ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে বহুক্ষণ।

Energizer-এর দাবীমতে, ডিভাইসটিতে থাকছে 1000 hours music playback বা 90 hours call-এর সুবিধা রাখা হয়েছে। আরো থাকছে দ্রুত চার্জিং এবং power-share সুবিধা।ডিভাইসটিকে power-bank হিসেবে ব্যবিহার করা সম্ভব।

ক্যামেরা

Power Max P1K Pop-তে ব্যাটারিই একমাত্র নজরকাড়া উপাদান নয়। 16MP এবং 2MP-এর দুটি লেন্সের pop-up selfie camera-সমৃদ্ধ অন্যতম প্রথম ফোনের নামও কুড়িয়েছে ডিভাইসটি।


ভালো contrast, vibrant color এবং আকর্ষণীয় depth renderingমিলিয়ে দারুণ ছবি আসে এ ক্যামেরাতে। অবশ্য ছবি তোলার পর on-screen delay থাকে বেশ। তাই হয়তো শ্রেষ্ঠ selfie camera-এর খাতায় নাম আসবে না ডিভাইসটির।ডিভাইসটির পেছনের দিকে রয়েছে 12MP main sensor, 5MP এবং  2MP লেন্স সহ tri-lens setup। ছবির মানখুব বেশিdetailed না। Focus করতেও বেশ সময় লাগে। বলতে গেলে, selfie camera থেকে খুব বেশি দারুণ নয় এটি।

খুব বেশি ফটোগ্রাফি অপশন নেই ফোনটিতে Panaroma বা অন্যান্য জনপ্রিয় image mode অনুপস্থিত Front facing ক্যামেরার জন্য এটি মানা যায়, যেহেতু default setting-এ ছবিরমান selfie-এর জন্য যথেষ্ট। েেতবে rear camera হিসেবে আরো কিছু ফিচার থাকলে ভালো হতো।

ফিচার

Energizer বাজারে নিয়ে এলো 18,000mAh ব্যাটারি স্মার্টফোন 5

Power Max P1K Pro-তে থাকছে Mediatek helio P70 chipset, 6GB RAM, 128GB memory। OS থাকছেAndroid 9 Pie।ফোনে app start time বেশ ধীর গতির। ওয়েব ব্রাউজিং-এর গতিত্ব তেমন না। Interface-এ scrolling-এ কিছুটা গতি ছিলো। তবে Android Pie-তে সব কিছুই কেমন স্লথ গতি মনে হয় । এমনকি কোনো background app চলা ছাড়াই বেশ ধীরগতিতে চলে ফোন। মনে হচ্ছে multi-tasking করতে এক জনম কেটে যাবে!

ব্যাটারি এবং ক্যামেরা ছাড়া তেমন অনন্য কিছু নেই ফোনটিতে। সবশেষে, অন্যান্য সাধারণ Androidফোনের মতোই লাগতে পারে।

প্রাথমিক রায়

আসলে সকল কিছু বিচারে এ ডিভাইস কে চালাবে, তা-ই প্রশ্ন।

ব্যাটারি ক্ষমতা অগাধ। Selfie camera-ও বেশ। হয়তো গাড়ির ভেতর ফোনটা ফেলে যারা ঘুরতে পছন্দ করেন, তাদের ব্যবহারে আসতে পারে। তবে উড়োজাহাজে চড়লে আবার বাড়তি ওজন নিয়ে শংকায়ও থাকা অস্বাভাবিক নয় বৈকি!Power Max P1K Pro –কে একটি novelty handset বলা চলে।প্রাত্যহিক ব্যবহারের খুব একটা উপযোগী হবে মনে হচ্ছে না।কারো কারো জন্য হয়তো 18000mAh ক্ষমতা কাজেই আসতে পারে। তবুও, বোঝাও কম নয়!

পোস্টটি ভালো লাগলে Like দিন, ফোনটি সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকলে অবশই কমেন্ট করবেন এবং প্রতিদিন প্রযুক্তির সব letest নিউজের Update পেতে (প্রযুক্তির আলো.কম) এর সাথে থাকুন ।