Huawei বাজারে নিয়ে এলো Foldable Phone Mate X

Samsung Galaxy Fold আসছে না, আসছে না, বলে যারা দুঃখ পাচ্ছেন, তাদের জন্য Huawei Mate X ভালো একটি সমাধান হতে পারে।Mate X-নজরকাড়া চেহারা এবং Falcon Wing কব্জা যে কারো মন ছুঁয়ে দিবে। যদিও Huawei এটির ব্যাপারে একদম নিশ্চুপ ছিলো, বেশ কিছু তথ্য আমাদের হাতে চলে এসেছে।

Huawei বাজারে নিয়ে এলো Foldable Phone Mate X

প্রথম কথা, বেশ টাকা গুনতে হবে স্মার্টফোনটি পেতে ।512GB internal storage এবং 8GB RAM-সহ ডিভাইসটির দাম পড়ছে ২২৯৯ ইউরো (২৬০৫ মার্কিন ডলার, ১৯৯৬ পাউন্ড, ৪৭৬৯ অস্ট্রেলিয়ান ডলার) ২ লাখ ১৮ হাজার টাকা প্রায় । Huawei-এর কথামতে ডিভাইসটি প্রক্রিয়াধীন ছিলো ৩ বছর যাবত। অবশেষে যুক্তরাজ্যে EE, Three এবং Vodafone-এর সাথে আসছে ডিভাইসটি।

MWC 2019-এর বহু foldable phone-এর সাথে এটিকেও বিবেচনায় আনা হচ্ছে। তবে আমাদের মতে ডিভাইসটি হতে যাচ্ছে পৃথিবীর সর্বাধিক গতিসম্পন্ন foldable 5G phone। এক নজর লাগিয়ে নিম্নের বিষয়গুলো উঠে আসে—

ডিজাইনঃ

Huawei Mate X-এর ভাঁজ খুললে পাবেন 8-inchলম্বা tablet, যা Android-চালিত।ভাঁজ বন্ধ করলে দৈর্ঘ্য একপাশে 6.6-inch এবং আরেকপাশে 6.4-inch (হিসাবে 6.38-inch) হয়ে যাবে। Screen-এর এহেন দৈর্ঘ্যের সাথে ভবিষ্যতের foldable phone-এর দৈর্ঘ্যের ব্যাপারে আমাদের আশা পূর্ণ হলো বৈকি!

Huawei বাজারে নিয়ে এলো Foldable Phone Mate X

ডিভাইসটির OLED display ভাঁজ বন্ধ থাকলে 4.6-inch bezel-heavy, ভাঁজ খোলা হলে 7.4-inch। দৈর্ঘ্যে তা Samsung Fold-এর থেকেও বড়; এবং হ্যাঁ, এ অবস্থায় বা এর চেয়ে বড় অবস্থায় পৌঁছতে Samsung-এর Fold 2 তৈরির দিকে নজর দেয়া ছাড়া উপায় নেই।Huawei Mate X-এর ভাঁজ খোলা অবস্থায় ক্যামেরার জন্য কোনো notch বা corner cutout থাকছে না। প্রথম foldable phone-এ এমন FullView display এনে যেন মাত করে ফেলছে Huawei!

ডিভাইসটির ভাঁজ করার ব্যবস্থাও একটু অন্যরকম। 8-inch লম্বা screen ভাঁজ হয়ে দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। বিভক্ত হওয়া display বাইরের দিকে মুখ করা থাকে। এ অবস্থায় Samsung Fold-এর displayভেতরের দিকে মুখ করা থাকতো; আর বাইরের দিকে থাকতো সামান্য outer screen।

ভাঁজ করার এ দারুণ কব্জাটি নাম দেয়া হয়েছে Falcon Wing। এর মাধ্যমে Mate X পূর্ণ সমতল রূপ ধারণ করতে পারে। পুরুত্ব থাকে মাত্র 5.4mm। কোম্পানির দাবী, কব্জাটির ভেতর প্রায় ১০০ রকম উপাদান রয়েছে।Tablet অবস্থায় পুরুত্বের দিক থেকে ডিভাইসটি iPadথেকেও সরু। Apple সর্বসাকুল্যে 5.9mm পর্যন্ত নিতে পেরেছে।




ডিভাইসটিতে ভালো মানের grip থাকছে। Huawei-এর মতে এটিতে ‘ergonomic curvature’ ধারণ করা হয়েছে। মূলতঃ হাতে ভালো ও দৃঢ় করে ডিভাইসটি ধরে রাখার জন্যেই grip-টির ব্যবস্থা।তবে grip-টি আরেকটি কাজও সমাধা করা যায়। ফোনের বেশির ভাগ উপাদান এটির আশেপাশেই অবস্থিত। এমনকি camera system ও fingerprint sensor/power button-এর অবস্থানও এদিকে।

Huawei Mate X আসছে Interstellar Blue রঙে। তবে ভাঁজ খোলা অবস্থায় রঙটি ডিভাইসের পেছনের দিকে দেখা যাবে। আর সাধারণ অবস্থায় ডিভাইসের উপর ও নিম্নের অংশে। Screen-এর সুরক্ষার জন্য case-ও পাওয়া যাবে। তবে এটা বিনামূল্যে পাওয়া যাবে কিনা, সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

ব্যবহৃত প্রযুক্তি এবং ব্যাটারি  

Huawei দাবী করছে নতুন ডিভাইসটি পৃথিবীর সর্বাধিক গতিসম্পন্ন foldable 5G phone। তবে এই ‘গতি’র মাজেযা কেবল ফোন ‘দ্রুত ভাঁজ খোলা ও বন্ধ করা’র মধ্যে নিহিত নয় অবশ্যই। কোম্পানির দাবীমতে 5G চলছে প্রথম থেকেই। সেজন্য ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে Kirin 980 chipset। Galaxy Fold কিন্তু আসছে 4G LTE নিয়ে, তাও তার শুরুতে হাঁকানো দাম দিয়েই কিনতে হবে। 5G সংস্করণের কথা তো বলেইনি!

 

Huawei বাজারে নিয়ে এলো Foldable Phone Mate X

Huawei Mate X-এ থাকছে পৃথিবীর প্রথম 7nm 5G chip এবং একটিquad 5G antenna design, যা 4.6Gbps পর্যন্ত পৌঁছোতে পারে। হিসাব করলে, মাত্র ৩ সেকেন্ডে 1GB সাইজের মুভি নামানো যাবে। Huawei-এর কথামতে এহেন গতি বর্তমানের 4G LTE থেকে প্রায় ১০ গুণ বেশি।

সংবাদ সম্মেলনে নিম্নোক্ত প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে:




512GB internal storage, 8GB RAM; Huawei-এর ছোটো nano memory card-ও চলার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।8-inch screen size সত্ত্বেও কেবল 4500mAh-এ দারুণ চলবে ব্যাটারি। Galaxy Fold-এর ব্যাটারির মতো একেও দু’ভাগে বিভক্ত করা যায়। Samsung-এর ব্যাটারি ক্ষমতা থেকে এটির ক্ষমতা কিঞ্চিত বেশি। তবে যেহেতু screen বড় আছে, ব্যাপারটি সয়ে যাবে।

চার্জ দেয়ার ব্যাপারেও যেন Mate X রেকর্ড ভঙ্গ করবে! 55W SuperCharge প্রযুক্তির দিয়ে Huawei 20 Pro-এর 44W চার্জিংকে হার মানিয়ে দিয়েছে। এমনকি মাত্র ৩০ মিনিট চার্জ দিলে ৮৫% চার্জ পূর্ণ হওয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

ক্যামেরা সমাচার

Huaweiতার নতুন ফোনে কতগুলো ক্যামেরা থাকবে, সে ব্যাপারে তেমন জানায়নি। তবে spin hinge-এর কাছেই camera system অবস্থিত, যা ডিভাইসের নিচে USB-C port পর্যন্ত বিস্তৃত।

Huawei বাজারে নিয়ে এলো Foldable Phone Mate X

Foldable ডিভাইসে camera system থাকে বেশ কৌতূহলউদ্দীপক। মূল ক্যামেরা দিয়ে সেলফি তুলতে গেলে নিজেকে পূর্ণরূপে দেখা সুযোগ থাকে। কখনো rear camera, কখনো কম megapixel-এর front camera ব্যবহার করে নিজের ছবি তোলার ধকল সইতে হবে না।

এমনকি অন্য কেউ যদি আপনার ছবি তুলতে থাকে, ফোনের screen-এর তাকিয়ে নিজের চুল আঁচড়ে নিতে পারেন। 6.6-inch screen-এ আপনি দেখতে পারবেন চিত্রগ্রাহক সাহেব 6.4-inch screen-এ কি দেখতে পারছেন। সাধারণ ক্রেতাবর্গের জন্য এটি বেশ ভালো ফিচার বটে!

দাম ও ছাড়ের তারিখ:

Huaweiঅবশ্য Samsung বা অন্য কোনো কোম্পানির পণ্যের চেয়ে কম দামের জন্য বিখ্যাত। তবে এবার Mate X-এর দাম সম্ভবত ২০০০ মার্কিন ডলারের Galaxy Fold-কেও ছাড়াচ্ছে।অবশ্যই ভেতরের প্রযুক্তিগুলো বেশ দামী। 5G থাকায় দাম আরেকটু বাড়াটাও অস্বাভাবিক নয়। ক্রেতাবর্গকে খুশি রাখার জন্য Huawei-কে তাই software, বিশেষ করে multi-taskingব্যবস্থাটা ভালো রাখা চাই।

Huawei বাজারে নিয়ে এলো Foldable Phone Mate X

Bendable screen কতটা টেকসই, তা নিয়েও আমাদের কৌতূহল।কিভাবে কাজ করে তা? প্লাস্টিক আবরণ আঁচড় সইতে পারে কেমন? দুটি outer screen কি কিছুটা ঝুঁকিপূর্ণ নয়?

আনুষ্ঠানিক যাত্রা তারিখ এখনো জানা যায়নি ডিভাইসটির। Samsung Fold আসছে ২৬শে এপ্রিল। হতে পারে ২০১৯ সালের মধ্যেই তার প্রতিদ্বন্দ্বীর সাথে লড়াইয়ে নামবে Huawei। যুক্তরাষ্ট্রে এটি পাওয়া যাবে কিনা, প্রশ্ন আছে। কেননা যুক্তরাষ্ট্রে গোয়েন্দাগিরির সন্দেহে Huawei-এর বেচাকেনার অনুমতি নেই।

সব মিলিয়ে Huawei Mate X ভালোই মনে হচ্ছে। 8-inch screen বর্তমানের সাধারণ tablet-গুলোর সমানই বলা চলে। দুটি outer screen নিয়ে বর্তমানের flagship স্মার্টফোনগুলোর আকারই ধারণ করেছে Mate X।

সবচেয়ে বড় প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে—কতটুক টেকসই? কোথায় পাওয়া যাবে, এটাও প্রশ্ন। EE, Three এবং Vodafone কাজ করছে carrier হিসেবে। Huawei-এর প্রথম foldable phone হিসেবে আরো কিছু জানার বাকি। MWC 2019 অনুষ্ঠিত হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

পোস্টটি ভালো লাগলে Like দিন, ফোনটি সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকলে অবশই কমেন্ট করবেন এবং প্রতিদিন প্রযুক্তির সব letest নিউজের Update পেতে (প্রযুক্তির আলো.কম) এর সাথেই থাকুন ।