Lenovo বাজারে নিয়ে এলো Yoga 920

দারুণ দারুণ সব touchscreen ল্যাপটপ পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। সম্ভবত তার শীর্ষে আছে Lenovo Yoga 920। Lenovo Yoga 910-এর পরবর্তী এই version-টির জন্য যেন সকলেই অপেক্ষায় ছিলেন। আগের version-এর মতোই 360 degree hinge রেখেছে Lenovo Yoga 920। সাথে জুড়েছে Thunderbolt 3, স্থানমতো একটি webcam এবং দীর্ঘতর ব্যাটারি লাইফ। ২০১৭-তে 2-in-1 ল্যাপটপ বেরিয়েছে অনেক, যার মাঝে Surface Book 2-এর মতো অসাধারণও ডিভাইসও রয়েছে। Lenovo Yoga 920 কি সেই প্রতিযোগীতায় টিকে আছে? সোজা কথায়, হ্যাঁ! তবে আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন। তবেই জানতে পারবেন ২০১৯-এ Lenovo Yoga 920 আপনার সময় ও টাকা, উভয়টিই উসুল করতে পারবে কিনা।

Lenovo বাজারে নিয়ে এলো Yoga 920




দাম-

অন্যান্য 2-in-1 ডিভাইসের মতো Lenovo Yoga 920-তেও থাকছে একটু ভিন্ন configuration। তবে হ্যাঁ, একদম খেই হারাবার মতো ভিন্নতা আসেনি। ভাগ্যক্রমে Lenovo Yoga 920-এর পর বের হচ্ছে Lenovo Yoga C930। কাজেই দাম কিছুটা কমবে বলে আশা করা যায়, বিশেষ করে Yoga 920-এর পরিমার্জিত সংস্করণের। Yoga 920 কিছুটা পুরোনোও হয়ে পড়েছে, যেহেতু বাজারে আসার প্রায় এক বছর হয়ে যাচ্ছে।

মূল মডেলটিতে আছে  Intel Core i5-8250U processor, 256GB SSD, 8GB RAM, 13.9-inch 1080p touchscreen এবং একটি Active Pen stylus।দাম পড়ছে ১১৯৯ মার্কিন ডলার এবং ১১৯৯ পাউন্ড।এই মডেলটি পাওয়া যাবে যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রে।দ্বিতীয় মডেলটিতে অধিক গতিসম্পন্ন Intel Core i7-8550U processor এবং 512GB SSD ছাড়া বাকি সব আগের মডেলের মতোই।দাম পড়ছে ১৫৪৯ মার্কিন ডলার এবং ১৩৪৯ পাউন্ড।পাওয়া যাচ্ছে যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রে।যুক্তরাজ্যের দামের কথা চিন্তা করলে দ্বিতীয় মডেলটি নেয়াই ভালো।

Lenovo বাজারে নিয়ে এলো Yoga 920

সর্বশেষ আরেকটি মডেল আছে, যেটাতে আনা হয়েছেIntel Core i7-8550U processor, 16GB RAM, 1TB পর্যন্ত storage রাখার সুবিধা এবং একটি UHD (3840 x 2160) screen।কেবল যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়াতে পাওয়া যাচ্ছে মডেলটি, দাম পড়ছে ১৯৯৯ মার্কিন ডলার ।মনে রাখা ভালো, অস্ট্রেলিয়াতে মডেলটি 512 GB storage নিয়ে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে।দুর্ভাগ্যক্রমে অস্ট্রেলিয়াবাসী কম spec-এর মডেলটি পাবেন না বটে, অবশ্য মার্কিন ডলারের সাথে তুলনা করলে দামটা ভালোই পাচ্ছেন। একইভাবে যুক্তরাজ্যবাসী 4K screen থেকে বঞ্চিত হবেন।

Lenovo Yoga 920 দামের দিক থেকে অবশ্যই সস্তা নয়। তবে অন্যান্য high-end ল্যাপটপের সাথে তুলনায় আসতে পারে। বিশেষ করে, Surface Pro 2 থেকে তো দাম একটু কমই আছে। সেই ডিভাইসটির দাম শুরু হয় ১৪৯৯ মার্কিন ডলার । ভেতরে আছে 7th-generation Intel Core i5 CPU, 8GB RAM, 256GB এবংintegrated GPU।আর শীর্ষে থাকা মডেলগুলোর জন্য দাম উঠে যাবে ২৯৯৯ মার্কিন ডলারে (২৯৯৯ পাউন্ড, প্রায় ৫২০০ অস্ট্রেলিয়ান ডলার)। এতে থাকবে 8th-gen Intel Core i7 CPU,16GB RAM, 1TB SSD এবং একটিGTX 1050 graphics card।

Lenovo Yoga 920পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন দামে এবং configuration-এ। তবে কোনোটারই নিজস্ব graphicsব্যবস্থা নেই। তার পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে একটি integrated graphics solution, যেটা ছবি এডিটিং-এর মতো নিত্যকার প্রায় সব কাজ চালাতে পারবে। তবে ভিডিও এডিটিং বা গেমিং-এর চাপ সামলাতে পারবে না হয়তো।




Lenovo বাজারে নিয়ে এলো Yoga 920

ডিজাইন-

মোটা অংকের দামে ভালো ডিজাইন না পেলে কি চলে? Lenovo Yoga 920-তে তেমন কাজটিই করা হয়েছে। ল্যাপটপটি দেখতে পাতলা হলেও বলিষ্ঠ ভাব আছে। ওজন পড়বে ৩ পাউন্ড (১.৩৭ কেজি) এবং আকারে ১২.৭ X ৮.৮ X ০.৫ ইঞ্চি (৩২৩ X ২২৩.৫ X ১৩.৯৫ মিলিমিটার)।হিসাব অনুযায়ী Lenovo Yoga 920 বেশ ভারী হবে না, বরং তুলতে সহজ। দারুণ একটি ধাতব ভাব রাখা হয়েছে premium feel আনবার জন্য, যদিও কয়েক ঘন্টা ব্যবহার করলে ধাতব দেহে আঙুলের ছাপ পড়ে যাবে। তাই পরিষ্কার রাখার জন্য হাতের কাছে একটি মাইক্রোফাইবার কাপড় রাখা উত্তম।

সুদর্শন-সুরূপ এমন 2-in-1ল্যাপটপের জন্য একটু বেশি দাম দেয়াটা মনে হয় মন্দ নয়! ল্যাপটপটির পেছনের দিকের কব্জাগুলোও যে কারো নজর কাড়বে। কব্জাগুলোর শক্তি-সামর্থ্য নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। আর থাকবেই বা কেন, screen orientation বদলাতে সক্ষম ল্যাপটপের জন্য এমন কব্জাই তো চাই!Surface Book 2-এর মতোই Lenovo Yoga 920-এর কব্জাগুলো এতটাই শক্তিশালী, bodyএবং display-এর অবস্থান কোনো রকম পরিবর্তন ছাড়াই screenনড়াচড়া করা যাবে। তবে Surface Book 2-এর মতো এটি এতটা উঁচিয়ে রাখাও নয়, সুতরাং এটি পূর্ণ ১৮০ ডিগ্রি ঘোরানো যাবে।

Screenঘুরিয়ে tablet-এর মতো ডিভাইসের আকৃতি নিতে সক্ষম 2-in-1 convertible ভালো একটা tablet experience দেয়ার চেষ্টা করে। তবে সর্বদা না-ও পারতে পারে, যেহেতু screen খুলে নেয়ার পর হাতে কিবোর্ড রেখে দিতেই হয়।ডিভাইসেরbody পাতলা রাখার কারণে Lenovo Yoga 920-তে এ অসুবিধাটি কিছুটা দূর হয়েছে। এতে কিবোর্ড আলাদা করে খুলে রাখার দরকার পড়ে না। তবে হ্যাঁ, সে কারণে tablet থেকে কিছুটা মোটা তো লাগবেই। তাই হাতে ধরে রাখতে অতোটা ভালো না-ও লাগতে পারে। অবশ্য এ অবস্থায় ল্যাপটপের কিবোর্ড বন্ধ হয়ে যায়, কাজেই বারবার কিবোর্ডে চাপ পড়ে কাজে ব্যাঘাত ঘটার সম্ভাবনাও নেই।

Lenovo বাজারে নিয়ে এলো Yoga 920

একারণে table-এ রূপান্তরে সক্ষম ল্যাপটপ কেউ কিনতে চাইলে তাকে Lenovo Yoga 920-এর নাম বলা যেতেই পারে। কেউ হয়তো tablet কিনতে চাইবেন, যেটা মাঝে মাঝে ল্যাপটপে রূপান্তর করে টাইপিং কাজ সারা যাবে। সেক্ষেত্রে তিনি Surface Book 2 অথবা Bluetooth কিবোর্ডসম্পন্ন কোনো tablet হয়তো কিনতে পারেন।Lenovo Yoga 920-এর display bezel যথেষ্ট পাতলা। Webcam-এর অবস্থান screen-এর উপরাংশে, যেটা Yoga 910-এ display-এর নিচের দিকের bezel-এ রাখা হয়েছিলো। এতে অবশ্য ব্যবহারকারীদের যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছিলো। Webcam-এর অবস্থান পরিবর্তন হওয়ার কারণে VoIP software ব্যবহারকালে ভিডিওগুলো আরো ঝকঝকে আসবে। উপরের bezel-টি আরো বড় করার দরকারও পড়েনি।




যেহেতু ডিজাইন পাতলা, সেহেতু বেশি একটা connectivity port-এর ব্যবস্থা নেই। বাম দিকে হেডফোন/মাইকের জ্যাক এবং দুটি USB-C port আছে। ডান দিকে আছে full size USB 3.0 port। খুব বেশি সুবিধার শোনাচ্ছে না, তবে MacBook-এর single USB-C port-এর তুলনায় তো অনেক ভালো।সত্যি বলতে এত কম সংখ্যক port থাকায় তেমন সমস্যাবোধ হচ্ছে না। বরং ল্যাপটপের সৌন্দর্যের জন্য এমনটা দরকার ছিলো। একাধিকUSB ডিভাইস সংযোগ করার জন্য adapter ব্যবহার করা যেতে পারে, যদিও Yoga 920-এর built-in Bluetooth support আছে।ল্যাপটপে একটি full size USB port যেহেতু আছে, এর দ্বারা legacy ডিভাইস এবং memory stick ব্যবহার করার সুবিধাও রাখা হয়েছে বলে ধরা যায়।

Lenovo বাজারে নিয়ে এলো Yoga 920

Stylus-এর এদিক সেদিক –

Surface Book 2-এর ব্যাপারে বড় অভিযোগ ছিলো, এত দাম হওয়া সত্ত্বেও এতে Surface Pen রাখা হয়নি। Surface Pen নেয়ার জন্য ক্রেতাকে আলাদা তা আলাদা করে কিনতে হতো। ক্রয়মূল্যও যে খুব কম ছিলো, তা কিন্তু নয়।ভাগ্যক্রমেLenovo এ সমস্যা নিজের পণ্যে রাখেনি। Yoga 920-এর সাথে Active Pen stylus রেখেছে। Stylus-টির ডিজাইনও বেশ সুন্দর। Yoga 920-এর4096 level-এর pressure sensitivity থাকার কারণে stylusএতে ভালোই কাজ করে। আঁকিবুকির app-গুলোতে দেখা যায়, stylus দিতে হালকা চাপ-গভীর চাপ, এমনকি বিক্ষিপ্ত হিজিবিজি আঁকাআঁকিও বেশ ভালো করে ধরতে পেরেছে।

Stylus-টিতে আছে দুটি বাটন। একটি চাপ দিয়ে ধরে থাকলে eraser mode চালু হয়। Surface Pen-এ যেমন stylus-এর উল্টো পাশে থাকে eraser mode, একদম পেন্সিলের মতো। Lenovo Active Pen নিয়ে যে কেউই সন্তুষ্ট থাকতে পারবে, তবে এই ফিচারটি অসাধারণ।তবে হ্যাঁ, কিছু সমস্যাও আছে। Active Pen-কে এত পাতলা ল্যাপটপের কোথায় রাখা হবে, তা নিয়ে Lenovo-কে বেশ কায়দা করতে হয়েছে। Microsoft এক্ষেত্রে Surface Pen-কে চুম্বকীয় ব্যবস্থায় Surface Laptop 2-এর সাথে জুড়িয়ে রাখার ব্যবস্থা করেছে। ফলে premium feel-টাও রক্ষা হয়েছে।





অবশ্য stylus রাখার জন্য Yoga 920-তে একটি প্লাস্টিক ধারকের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর এর অবস্থান হচ্ছে full size USB port-এ। ফলে ব্যবহারের সময়ে USB port-এ কিছু সংযোগের সুযোগ থাকছে না। Yoga 920 যেমন premium, এ বিষয়টি কেমন যেন premium ভাব রাখতে পারলো না!

পোস্টটি ভালো লাগলে Like দিন, ল্যাপটপটি সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকলে অবশই কমেন্ট করবেন এবং প্রতিদিন প্রযুক্তির সব letest নিউজের Update পেতে প্রযুক্তির আলো.কম-এর সাথে থাকুন ।